অর্থ মন্ত্রণালয়ের জড়তা দূর করে সুষ্ঠুভাবে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় কামালের

0
315

প্রায় ২৮ বছর পর সিলেট অঞ্চলের বাইরে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেলেন কোনো মন্ত্রী। আর দায়িত্ব পেয়ে শপথ গ্রহণের আগেই ঘোষণা দিলেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের জড়তাগুলো বদলে দেয়ার কথা।
একাদশ জাতীয় সংসদে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার আগে গত পাঁচ বছর পরিকল্পনা মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। রবিবার বিকালে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পেয়ে তিনি বলেছেন, ‘এতদিন অর্থ মন্ত্রণালয় যেভাবে চলছিল, সেভাবে আর নয়। আগামিকাল থেকেই নতুন করে কাজ শুরু হবে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের পরিসরও অনেক বাড়বে।’
তিনি বলেছেন, ‘মিথ্যা আশ্বাস দেবো না। আমার শিক্ষা ও অর্জিত জ্ঞান দিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়কে এগিয়ে নেব। আমি ফেল করব না।’ বিনিয়োগ ও ব্যাংকিং খাতের সব সমস্যার সমাধান হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি। বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে এগিয়ে যাব। আমি আগে দেখব কোন কোন জায়গায় কী কী সমস্যা আছে বা কী অবস্থায় আছে। তারপর কাজ করব। আমি কাজ করব নাম্বার বেইজড, অবজেকটিভ বেইজড এবং টাইম বেইজড।’ স্বাধীনতার পর প্রায় ২৮ বছর অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন সিলেটের কেউ না কেউ। ১৯৮০-১৯৮১ মেয়াদে জিয়াউর রহমান সরকারের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেন সাইফুর রহমান। এরপর এরশাদ সরকারের আমলে ১৯৮৩ থেকে ৮৪ সাল পর্যন্ত এবং ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত অর্থমন্ত্রী ছিলেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই দুজন মিলেই দিয়েছেন ২৪টি বাজেট।
বিশেষ করে ১৯৯১ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রতিটি রাজনৈতিক সরকারের আমলেই অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন সিলেট অঞ্চলের কোনো মন্ত্রী। ১৯৯০ সালে সেনা শাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের পতনের পর জাতীয় নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে জিতে ক্ষমতায় আসা বিএনপির সাইফুর রহমান হন অর্থমন্ত্রী। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর অর্থমন্ত্রী করা হয় শাহ আ স ম কিবরিয়াকে। তিনি বৃহত্তর সিলেটের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের বাসিন্দা। ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় ফিরলে আবার পাঁচ বছরের জন্য অর্থমন্ত্রী হন সাইফুর রহমান। এরপর ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনে জিতে ক্ষমতায় ফেরা আওয়ামী লীগ অর্থমন্ত্রী করে সিলেট-১ আসন থেকে জয়ী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে।
২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনেও অর্থ মন্ত্রণালয়ের পদটি পান মুহিত। তবে গত ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেননি প্রবীন এই রাজনীতিবিদ। মুহিত এর আগেই সংসদ থেকে বিদায় নিয়ে নেন। আর এতেই সুযোগ পেয়েযান সাবেক পরিকল্পনা মন্ত্রী মোস্তফা কামাল। ২০১৯ সালের শুরুতে অর্থাৎ, সোমবার থেকে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে নতুন সরকার শপথ নিতে যাচ্ছে তাতে অর্থমন্ত্রী হচ্ছেন কুমিল্লা-১০ আসনের সংসদ সদস্য আ হ ম মুস্তফা কামাল।
এদিকে অর্থমন্ত্রী না পেলেও বৃহত্তর সিলেট এবার মন্ত্রিত্ব পেয়েছে পাঁচজন। যেখানে পূর্ণ মন্ত্রী হয়েছেন তিনজন, দুজন প্রতিমন্ত্রী। সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিতের আসনে তারই ভাই মোমেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সুনামগঞ্জ-৩ আসনের এম এ মান্নান পরিকল্পনা মন্ত্রী, মৌলভীবাজার-১ আসনের শাহাবউদ্দিন হয়েছেন পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী। সিলেট-৪ আসনের ইমরান আহমেদ হয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী, আর হবিগঞ্জ-৪ আসনের মাহবুব আলী হয়েছেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here