আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ ভোটারদের কাছে ঘুরছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা

0
359

আটঘরিয়া প্রতিনিধি: পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা উপজেলার সর্বত্ত প্রচারনায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিভিন্ন পাড়া মহল্লার ভোটারদের দ্বারে-দ্বারে ভোট প্রার্থনা করছেন। উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, আগামী ১৮ মার্চ আসন্ন ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের জন্য চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১০ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। এ সকল প্রার্থীরা তাদের জনমত যাচাইয়ের জন্য জনগণের দাঁড় প্রাপ্তে গিয়ে নিজেদের যোগ্যতা পরিচিতি ও জনসেবার বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের মনোরঞ্জনের চেষ্টা করছেন। আটঘরিয়া উপজেরায় ১টি পৌর সভা ও ৫টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে উপজেলা পরিষদ গঠিত। ইউনিয়নগুলো হলো- দেবোত্তর, চাঁদভা, মাজপাড়া, একদন্ত, লক্ষীপুর। উপজেলায় ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৯ হাজার ১শ ১৬ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ৫৯ হাজার ৭ শ ৬৮ এবং মহিলা ভোটার ৫৯ হাজার ৩ ৪৮ জন। এই এলাকার জনগনের জীবনযাত্রার মান মধ্য পর্যায়ে। অঞ্চলের মানুষের আয়ের প্রধান উৎস হচ্ছে কৃষি কাজ। আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনজন প্রার্থীর মধ্যে সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে সাড়া জাগিয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপসম্পাদক ও আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং আটঘরিয়া পৌরসভার মেয়র      মো. শহিদুল ইসলাম রতনের ছেলে মো. তানভীর ইসলাম (মোটরসাইকেল)। স্থানীয় ভোটাররা বলছেন আটঘরিয়া উপজেলার মানুষের জীবনমান এবং এলাকার উন্নয়নে একজন তরুণ নেতৃত্বেই সম্ভব। এ বিষয়ে মো. তানভীর ইসলাম বলেন, আমি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারলে উপজেলার তৃণমূল পর্যায়ে মেহনতী ও দরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের দুঃখ দূর্দশা দূর করা এবং রাস্তাঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন করতে সার্বিক চেষ্টা করবো।  আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা মো. মোবাররক হোসেন পান্না (নৌকা) প্রতিক পেলেও নির্বাচনে মাঠে পাচ্ছেন না উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের দলীয় কোন নেতাকর্মীকে। যে কারনে নির্বাচন করতে হিমশিম খাচ্ছেন। অপর দিকে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাওয়ার তালিকায় ১ নাম্বারে থাকা মো. ইশারত আলী (আনারস)। তিনি এর আগে ২ বার উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি পূর্বের ভুলত্রুটি ভুলে গিয়ে আগামীতে তাকে পুনঃরায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত করলে আটঘরিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষের দুঃখ-দুর্দশা দুর করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েই ভোটাদের কাছে ভোট চাইছেন। এই প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। ভাইস চেয়ারম্যান প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ১০ জন প্রার্থী। এরা হলেন-আক্কাস আলী (টিয়াপাখী), আব্দুস সাত্তার মোহাম্মদ শরিফুল ইসরাম রাজা (তালা), আবু নছর (টিউবওয়েল), খাইরুল ইসলাম (মাইক), জালাল (বাল্প), জাহাঙ্গীর আলম (গ্যাসসিলিন্ডার) জাহাঙ্গীর আলম (পালকি), মহিদুল ইসলাম (বই), হবিবুল্লাহ মোল্লা (চশমা), হেলাল উদ্দিন (উড়োজাহাজ) প্রতীক পেয়েচেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন বর্তমান উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. আমেনা আক্তার নীলা (সেলাই মেশিন), জোসনা খাতুন (কলস), তাহমিনা সুলতানা (হাঁস), রুনা খাতুন (ফুটবল), শেখ কাজি সোনিয়া (পদ্ম ফুল)। বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যার আমেনা আক্তার নীলা ও জোসনা খাতুন জানান, তারা ছাত্রীজীবন থেকেই রাজনীতির মাধ্যমে জনসেবামূলক কাজে অংশগ্রহণ করে আসছেন। এসকল কারণেই এবারে নির্বাচনেই উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে তাকেই দেখতে চান বলে অনেকেই মন্তব্য করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here