আতিকুল বানালেন চা, তাবিথের মুয়াজ্জিনের সঙ্গে দুর্ব্যবহার!

0
5

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচন নিয়ে চায়ের কাপে ঝড় উঠেছে। এ ভোটে বিএনপি প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের বিরুদ্ধে একটি জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন শরফুদ্দিনের সঙ্গে দুর্ব্যবহার ও ধাক্কা দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেওয়ার শোরগোল উঠেছে ঠিক তখন বিপরীত পথেই হেঁটেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

একজন সাধারণ চায়ের দোকানির দোকানে বসে নিজের হাতে চা বানিয়ে নিজের নির্বাচনী কর্মীদের পাশাপাশি ভোটারদের মাঝে পরিবেশন করেছেন। এক বা দুই কাপ নয়, বিরতিহীনভাবে বানিয়েছেন ৮ কাপ চা। ভোটার ও কর্মীদের চা পান শেষে দোকানি ইয়াসিনকে বকশিশ দিয়েছেন ৮০০ টাকা!

দুই মেয়র প্রার্থীর এমন দু’টি বিষয় এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছাপিয়ে সাধারণ ভোটারদেরও মুখে মুখে। কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে দুই প্রার্থীর এমন দু’টি কর্মকান্ডের খবর। একজন এমন ঘটনায় ভোটারদের কাছে নিন্দিত হচ্ছেন আরেকজন হচ্ছেন প্রশংসিত। এমন ঘটনায় বদলে যাচ্ছে ভোটের হিসাব-নিকাশ।

জানা যায়, প্রতীক বরাদ্দের চতুর্থ দিনে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) ডিএনসিসি’র বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক জনসংযোগ করেছেন মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ও বিএনপি’র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তবে তৃতীয় দিনে রোববার (১২ জানুয়ারি) গোল বাঁধিয়ে বসেন তাবিথ।

ওইদিন সকালে মিরপুর মাজার গেইট থেকে প্রচারণা শুরু করে বিকেলে স্থানীয় পাইকপাড়ায় জনসংযোগ করেন তিনি। এ সময় পাইকপাড়া আহমেদিয়া জামে মসজিদের সামনের সরু গলিতে লিফলেট বিতরণের সময় ওই মসজিদের মুয়াজ্জিন শরফুদ্দিন তাবিথকে কাছে পেয়ে মসজিদের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

তাবিথ মেয়র নির্বাচিত হলে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন। কিন্তু মুয়াজ্জিন তাৎক্ষণিক সহায়তা চাইলে খেঁই হারিয়ে ফেলেন বিএনপি’র প্রার্থী। স্থানীয় মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আলী আকবর অভিযোগ করে বলেন, ‘তাবিথ আউয়াল মুয়াজ্জিনকে ধাক্কা দিয়ে ড্রেনে ফেলে দিয়েছেন।

এতে তিনি হাতে-পায়ে চোট পেয়েছেন। নগর পিতা না হয়েই যদি তাঁর এই অবস্থা হয় তবে মেয়র হলে তিনি টাকার গরমে মানুষকে মানুষই মনে করবেন না। আলেম সমাজ ও সাধারণ মানুষ বিষয়টিকে ভালো চোখে দেখেননি।’

স্থানীয়রা বলছেন, একজন জনপ্রতিনিধির ধৈর্য্য বড় গুণ। এই গুণের কারণেই তিনি জননন্দিত হন। কিন্তু মাথা গরম স্বভাব একজন প্রার্থীকে ডুবিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। আগেভাগেই এই বিষয়টি জনসম্মুখে আসায় ভোটের মাঠে আস্থা হারাবেন ওই প্রার্থী।

এ বিষয়ে তাবিথ আউয়ালের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বিপরীত চিত্র আতিকুল ইসলামের

৯ মাস ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র ছিলেন আতিকুল ইসলাম। ওই সময়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে যাওয়ার মানসিকতার বারবার প্রমাণ দেন উত্তরের এই নগর পিতা। গত বছরের ২০ জুন ডিএনসিসির ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের মাগারদিয়া ও সাঁতারকুল এলাকায় ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারণা চালান আতিকুল।

সেদিন পাড়ার চায়ের দোকানি মকবুল হোসেনের দোকানে বসে চা খেয়ে সবার সঙ্গে সেলফি তুলেন আতিকুল। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

এবার ভোটের প্রচারণায় নেমে সোমবার (১৩ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানী রামপুরা, আফতাবনগর এলাকায় প্রচারণা চলাকালে হঠাৎ স্থানীয় ইয়াসিনের চায়ের দোকানে গিয়ে বসেন আতিকুল ইসলাম। নিজেই ৮ কাপ চা বানিয়ে স্থানীয় ভোটার ও কর্মীদের মাঝে পরিবেশন করেন।

বিস্ময়ভরা চোখে পুরো বিষয়টি দেখছিলেন চা দোকানি ইয়াসিন। তিনি বলেন, ‘আমার দোকানে একজন মেয়র প্রার্থী চা বানিয়েছেন। নিজেই পরিবেশন করেছেন। দিনটি আমার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’

ইয়াসিন জানান, চা পান শেষে তাকে ৮’শ টাকা বকশিশ দিয়েছেন মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

মেয়র আতিকুল ইসলামের নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে যাওয়ার বিষয়টি মোটেও নতুন নয় আতিকুল ইসলামের জন্য। নিজ হাতে চা বানিয়ে এবার তিনি জনসংযোগে নতুন মাত্রা যুক্ত করেছেন।

আতিকুল ইসলামের এমন কর্মকান্ড রীতিমতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। কেউ কেউ তার এই কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, একটি চায়ের দোকানের চুলার পাশে বসে আছেন আতিকুল।

নিজেই চা বানিয়ে সবার হাতে হাতে দিচ্ছেন। তাঁর চা বানানোর এমন দৃশ্য দেখতে স্থানীয় জনসাধারণের ভিড় জমে যায়। অনেকে নিজের মোবাইলে দৃশ্যটি ধারণও করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here